বিভিন্ন জেলায় ইউনিয়ন পরিষদে ডিজিটাল তথ্য সেবা কেন্দ্রের অধীনে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে (উদ্যোক্তা) কর্মরতদের রাজস্বখাতে সরাসরি নিয়োগ প্রদানের নির্দেশনা চেয়ে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগে একটি রীট পিটিশন দায়ের করেন। রীটকারীদের পক্ষে রীট পিটিশনটি দায়ের করেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া। অদ্য ০১/১১/২০১৭ ইং তারিখে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগের মাননীয় বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও মাননীয় বিচারপতি আবু তাহের মোঃ সাইফুর রহমান এর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। উক্ত রীট পিটিশনের প্রাথমিক শুনানী অন্তে কেন রীটকারীদের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে (উদ্যোক্তা) রাজস্বখাতে সরাসরি নিয়োগ প্রদানের নির্দেশনা দেওয়া হবে না এই মর্মে বিবাদীগণের প্রতি ৪ সপ্তাহের রুলনিশি জারী করেন।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব সহ ৭ জনকে বিবাদী করা হয়েছে। রীটকারীদের পক্ষে শুনানী করেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ মিয়া রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন, ডেপুটি এর্টনি মোখলেছুর রহমান । ইউনিয়নে পরিষদে কম্পিউটার অপারেটর পদে কর্মরতদের অগ্রাধিকার না দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা হলে আবেদনকারীরা মহামান্য হাইকোর্টে এই রীট পিটিশনটি দায়ের করেন। রীটকারীগণ হলেন নারায়নগঞ্জ জেলার সোনারগাও থানার সালমা আক্তার, ইউছুফ মিয়া, আল মামুদ, ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার মোঃ বাবুল মিয়া সহ আরো অনেকে।

সূত্রমতে, ২০১০ সালে ইউনিয়ন পরিষদে ডিজিটাল সেন্টার চালুর পর থেকে পরিষদের যাবতীয় কম্পিউটারাইজড কাজ এবং দাপ্তরিক কাজে সহযোগিতা করে আসছেন উদোক্তারা এবং তাদের চুক্তি ভিত্তিক নিয়োগ দেওয়া হয়। এরই মধ্যে ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রদান করে কিন্তু উদোক্তারা রাজস্বখাতে সরাসরি নিয়োগের জন্য আবেদন করে আসছে। ইউনিয়নে পরিষদে কম্পিউটার অপারেটর পদে কর্মরতদের অগ্রাধিকার না দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে উক্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা হয়।